১ জানুয়ারি খালেদাকে তালা ভেঙ্গে বের করে আনতে পারেনি কাদের সিদ্দিকী

বাসাইল উপজেলার কাউলজানী বোর্ড বাজারে আয়োজিত পথসভায় কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘আমি মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে দেশ স্বাধীন করতে পারি, বঙ্গবন্ধুর জন্য আমি যৌবন ঝরাতে পারি। কিন্তু তার কন্যা আমাকে ভোটে দাঁড়াতে দেবে না! এ জন্য আমরা ধানের শীষকে জাতীয় মার্কা বানিয়েছি। আগে ছিল এটা বিএনপির মার্কা, আজকে ধানের শীষ হয়েছে বাংলাদেশের মার্কা। বাংলাদেশের স্বাধীনতার রক্ষা করার মার্কা হচ্ছে ধানের শীষ।’
তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে জেল খানায় রাখছো, তাও আবার পরিত্যক্ত জেলে। জানুয়ারির ১ তারিখ অথবা ২ তারিখ আমি গিয়ে তালা খুলে খালেদা জিয়াকে বের করে আনবো।’ভোটারদের উদ্দেশে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘৩০ তারিখের ভোট দেশের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অবৈধ সরকারকে আজকে সরানোর জন্য সব চেয়ে বড় অস্ত্র হচ্ছে ধানের শীষ। সেই জন্য আমরা সবাই মিলে ধানের শীষ নিয়েছি।’
উল্লেখ্য ৩০ ডিসেম্বর নৌকার পক্ষে গনজোয়ার উঠে। বিএনপির মনোনয়ন বিভ্রান্তি, রাজাকার মানবতাবিরোধী অপরাধে জড়িতদের নমিনেশন দেওয়াতে জনগন বিএনপিকে প্রত্যাখান করে। কাদের সিদ্দিকী পূর্বেই রিন খেলাপির কারনে মনোনয়ন বঞ্চিত হন। গনরায়ে বিএনপিকে বর্জন করে বাংলার আমজনতা। কাদের সিদ্দিকীর পূর্বের সব বানী সমালোচনায় পরিনত হয়। খালেদাকে মুক্তি যে একমাত্র আইনি প্রক্রিয়ায় করতে হবে তা বিএনপি আবার বুঝতে পারে।

Leave a Reply