টাঙ্গাইল-৪ কালিহাতী ফুরফুরে মেজাজে সোহেল হাজারী, দুশ্চিন্তায় লিয়াকত

জুয়েল হিমু,টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচারণার জন্য হাতে মাত্র আর দুই দিন বাকি। তাই শেষ মুহূর্তের তুমুল প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা। টাঙ্গাইল-৪-কালিহাতী আসনে এবার মুখোমুখি হয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারী। তার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছেন আওয়ামী লীগ থেকে প্রদত্যাগ করে কৃষক শ্রমিক জনতালীগে যোগদান করে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী লিয়াকত আলী। বর্তমানে অভ্যন্তরীণ কোন্দল মিটিয়ে সংসদ সদস্য সোহেল হাজারী ফুরফুরে মেজাজে। তবে নানান কারণে ভালো নেই প্রতিপক্ষ লিয়াকত আলী। কিন্তু ভোটে থাকলেও মাঠ জমাতে পারছেন না ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষ প্রার্থী লিয়াকত। দীর্ঘ ১০ বছর ধরে আওয়ামী লীগ রাজনীতি করে নৌকা প্রতিকের জন্য লড়াই করে আসছিলেন লিয়াকত আলী। আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র কিনেছিলেন তিনি। লিয়াকত আলী আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেয়ে কৃষক শ্রমিক জনতালীগে যোগদান করে ভাগিয়ে নেন ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষ প্রতিক। ফলে ভোটের সময় এসে নেতাকর্মীদের সংগঠিত করতে পারছেন না। এর ওপর পড়েছেন কর্মী সঙ্কটে। এলাকায় তার পোস্টারের সংখ্যা দেখা মিলে কম। এছাড়াও বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। ফলে প্রচার প্রচারণার জন্য লোক পাওয়া যাচ্ছে না।
এদিকে, রাগ, ক্ষোভ, অভিমান ভুলে গিয়ে নৌকাকে বিজয়ী করার লক্ষ্যে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। মনোনয়ন পাওয়ার জন্য একযোগে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সোহেল হাজারীর বিরোধিতাও করেছিলেন। তারা এখন একযোগে প্রচারণাও চালাচ্ছেন। সোহেল হাজারী বলেন, আওয়ামী লীগ একটি বৃহৎ দল। এখানে চাওয়া-পাওয়া বেশি থাকতেই পারে। প্রার্থী হতে চাওয়া কোনো অপরাধ না। শেখ হাসিনার বিজয়ের জন্য আমাদের এখন এক হয়ে কাজ করতে হবে। তাই সকল বিভেদ ভুলে দলীয় নেতাকর্মীরা উন্নয়নের প্রতীক নৌকার বিজয়ের জন্য একাট্টা হয়ে কাজ করছেন।

জুয়ের হিমু
টাঙ্গাইল প্রতিনিধিটাঙ্গাইল-৪ কালিহাতী
ফুরফুরে মেজাজে সোহেল হাজারী, দুশ্চিন্তায় লিয়াকত
জুয়েল হিমু,টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচারণার জন্য হাতে মাত্র আর দুই দিন বাকি। তাই শেষ মুহূর্তের তুমুল প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা। টাঙ্গাইল-৪-কালিহাতী আসনে এবার মুখোমুখি হয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারী। তার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছেন আওয়ামী লীগ থেকে প্রদত্যাগ করে কৃষক শ্রমিক জনতালীগে যোগদান করে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী লিয়াকত আলী। বর্তমানে অভ্যন্তরীণ কোন্দল মিটিয়ে সংসদ সদস্য সোহেল হাজারী ফুরফুরে মেজাজে। তবে নানান কারণে ভালো নেই প্রতিপক্ষ লিয়াকত আলী। কিন্তু ভোটে থাকলেও মাঠ জমাতে পারছেন না ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষ প্রার্থী লিয়াকত। দীর্ঘ ১০ বছর ধরে আওয়ামী লীগ রাজনীতি করে নৌকা প্রতিকের জন্য লড়াই করে আসছিলেন লিয়াকত আলী। আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র কিনেছিলেন তিনি। লিয়াকত আলী আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেয়ে কৃষক শ্রমিক জনতালীগে যোগদান করে ভাগিয়ে নেন ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষ প্রতিক। ফলে ভোটের সময় এসে নেতাকর্মীদের সংগঠিত করতে পারছেন না। এর ওপর পড়েছেন কর্মী সঙ্কটে। এলাকায় তার পোস্টারের সংখ্যা দেখা মিলে কম। এছাড়াও বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। ফলে প্রচার প্রচারণার জন্য লোক পাওয়া যাচ্ছে না।
এদিকে, রাগ, ক্ষোভ, অভিমান ভুলে গিয়ে নৌকাকে বিজয়ী করার লক্ষ্যে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। মনোনয়ন পাওয়ার জন্য একযোগে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সোহেল হাজারীর বিরোধিতাও করেছিলেন। তারা এখন একযোগে প্রচারণাও চালাচ্ছেন। সোহেল হাজারী বলেন, আওয়ামী লীগ একটি বৃহৎ দল। এখানে চাওয়া-পাওয়া বেশি থাকতেই পারে। প্রার্থী হতে চাওয়া কোনো অপরাধ না। শেখ হাসিনার বিজয়ের জন্য আমাদের এখন এক হয়ে কাজ করতে হবে। তাই সকল বিভেদ ভুলে দলীয় নেতাকর্মীরা উন্নয়নের প্রতীক নৌকার বিজয়ের জন্য একাট্টা হয়ে কাজ করছেন।
জুয়ের হিমু
টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

Leave a Reply