বিএনপির আমলে যদি ফেসবুক থাকতো!

বাংলাদেশে ফেসবুক জনপ্রিয় হয় ২০১০ সালের দিকে। এর আগে ইন্টারনেট এতো সহজলভ্য ছিলো না। প্রযুক্তিও হাতের মুঠোয় ছিলো না। বর্তমানে যে কোন ঘটনা সত্যমিথ্যা মিলিয়ে মুহুর্তের দেশের সবাই জেনে যায়। কিন্তু ২০০১ থেকে ২০০৬ সালের ঘটে যাওয়া অনেক বড় ঘটনাও ভাইরাল হয়নি। এর চেয়ে অনেক তুচ্ছ ঘটনাও বর্তমানে ভাইরাল হচ্ছে।

তবে সেই সময় যদি ফেসবুক থাকতো তাহলে বিএনপি আমলের অপকর্ম গুলো হয়তো মানুষ আরো বেশি করে মনে রাখতে পারতো। সে সময়য়ের বিভিন্ন পত্রপত্রিকা থেকে বিএনপি জামায়েত আমালের কিছু অপকর্মের নমুনা দেয়া হলো।
২১ শে অগাস্ট গ্রেনেড হামলা
৫০০ জায়গায় গ্রেনেড হামলা একই সময়ে
আইভি রহমান হত্যাকান্ড
অধ্যাপক হুমায়ুন আজাদ হত্যাকান্ড
আওয়ামী লীগের অর্থমন্ত্রী শাহ্ এএমএস কিবরিয়া হত্যাকান্ড
আওয়ামী লীগের এমপি আহসানুল্লাহ মাস্টার হত্যাকান্ড
দেশ চারবার দুর্নীতিতে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন
রাজাকারের গাড়িতে পতাকা, জামায়াতের দম্ভ।
চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিদ্যুতের জন্য গুলি করে ১৯জন কৃষক হত্যা
কুষ্টিয়ায় বিদ্যুতের জন্য গুলি করে কৃষক হত্যা
ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূতের উপর গ্রেনেড হামলা।
বানিয়ার চরে গির্জায় গ্রেনেড হামলা
বাশখালী তে ১৩ জন হিন্দু কে পুড়িয়ে মারা
ময়মনসিংহ সিনেমা হলে বোমা হামলা
খালেদা জিয়ার ৪০০ সুটকেস নিয়ে বিদেশ গমন
তারেক জিয়ার মালয়েশিয়াতে ২৮ হাজারকোটি টাকা ধরা খাওয়া
খালেদা জিয়ার ৪০০ সুটকেস নিয়ে বিদেশ গমন
তারেক জিয়ার মালয়েশিয়াতে ২৮ হাজারকোটি টাকা ধরা খাওয়া
বাংলা ভাইয়ের উত্থান
দশ ট্রাক অস্ত্র
মিস্টার ১০% হিসাবে শুধু নয় কালা জাহাঙ্গির হয়ে পানের দোকান থেকেও চাদা উত্তোলন।
বিসিএস এর প্রশ্ন পত্র ফাঁস প্রতিবার। শিবিরবেঁছে বেঁছে নিয়োগ
আর্মি থেকে শুরু করে গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী পর্যন্ত শিবিরের কর্মী নিয়োগ
প্রসাশনে তিনস্তর বিশিষ্ট জামায়াতী প্রতিরক্ষা ব্যূহ তৈরি করা
গোপাল কৃষ্ণ মুহুরী হত্যাকান্ড
অধ্যাপক ইউনুস হত্যাকান্ড
ডাক্তার মোজাম্মেল হত্যাকান্ড(মোট হত্যাকান্ড ২৪ হাজার)
বগুড়ার কাহালুতে আড়াইলাখ গুলি উদ্ধার
ময়মনসিংহে আড়াই লাখ গুলি পরিত্যাক্ত উদ্ধার
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার খুন
সারাদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর অমানুষিক অত্যাচার
নিজের মায়ের সামনে একজন হিন্দু মেয়েকে গণধর্ষন
সারা দেশে কয়েকশো হিন্দু মেয়ে সহ অনেক আওয়ামী ঘরানার মেয়ে ধর্ষিত হয় নির্বাচনের প্রথম কয় মাসেই। এর মধ্যে রাজশাহী ছিল অন্যতম।
সারাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় গুলো দখলে নিয়ে সন্ত্রাসের অভয়অরণ্য তৈরি করা, অনেক ছাত্রের জীবন অনিশ্চিত।
চৌধুরী পাড়ায় মসজিদ নিয়ে মুসুল্লীকে গুলি করে হত্যা।
উল্লেখ্য এই ঘটনাগুলোতে আওয়ামী লীগের প্রায় ২৩ হাজার নেতাকর্মীকে হত্যা করা হয়েছিলো। এছাড়া আরো অসংখ্য হত্যা, গুম, খুন, ধর্ষন, অর্থ পাচার, বোমা হামলা, গ্রেনেড-পেট্রোল হামলা, মার্ডারের চেস্টার নজির আছে।

Leave a Reply