১৬ ই ডিসেম্বর পাকিস্তানীরা আত্মসমর্পণ বাংগালি জেনারেলের হাতে না করে অরোরার হাতে কেনো করলো?

এই বিষয়টা উঠে এলে অনেক হার্ডকোর আওয়ামীলীগার রা ও কনফিউজড হয়ে পড়েন। অনেকে মনে করেন তাতে আমাদের স্বাধীনতা ভারতের হাতে রয়ে গেছে। অনেকে মনে করেন, ভারত ইচ্ছাকৃতভাবে আমাদেরকে তাদের অধীনে রাখার জন্য এটা করেছে। 

যুক্তি:

১) আত্মসর্মপন দলীল কিংবা যুদ্ধবিরতি চুক্তির একটা আন্তর্জাতিক নিয়ম আছে। নিয়ম অনুযায়ী জেনারেল নিয়াজি আত্মসমর্পন করতে পারে শুধুমাত্র অন্য একজন জেনারেলের কাছে। নিম্ম পদস্থ অফিসারের সাথে কখনো পরাজিত উচ্চপদস্থ অফিসারের আত্মসমর্পন দলীল হয়না। মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে জেনারেল পদমর্যাদার কেউ ছিলেন না। উসমানী সাহেব তখন ও জেনারেল হননি। পাকিস্থান সেনাবাহিনী থেকে অবসর নেওয়ার সময় কর্ণেল ছিলেন মাত্র। মুজিব নগর সরকার ই উসমানী সাহেবকে জেনারেল পদমর্যাদা দিয়েছিলেন।

২) আত্মসমর্পন দলীলে বাংলাদেশীদের সিগনেচার জরুরী নাকি তৃতীয় পক্ষ নামক সাক্ষীর সিগনেচার বেশি জরুরী?

৩) মিত্র বাহিনীর কাছে যখন আত্মসমর্পন করা হয় তখন স্বাভাবিক ভাবেই উপস্থিতদের মধ্যে যার পদবী সর্বাধিক তিনি নেতৃত্ব দেবেন। জেনারেল পদবীর অরোরা ছিলেন তখনকার পরিস্থিতিতে সর্বোচ্চ। বাঙ্গালী অফিসারদের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধের ডেপুটি চিপ একে খন্দকার উপস্থিত ছিলেন। তখন মুক্তিবাহিনীর পরিচয় ছিল মিত্রবাহিনী নামে। মিত্র বাহিনীর জেনারেলের উপস্থিতিতে পাকিস্থানীরা কিভাবে একজন নিন্ম পদধারী একে খন্দকারের কাছে আত্মসমর্পন করতে পারে?

৪) আত্মসমর্পন দলীলকে যারা স্বাধীনতার দলীল মনে করছেন, তারা মূলত সবাই প্রপাগান্ডার শিকার। পাকিস্থানীদের আত্মসমর্পন ও আমাদের স্বাধীনতা সম্পূর্ণ ভিন্ন বিষয়। আত্মসমর্পন দলীল হয় ১৬ ই ডিসেম্বর। আর আমাদের স্বাধীনতা অর্জিত হয় ২৬ শে মার্চ।

৫) যেসব দেশ আত্মসমর্পন দলীল ছাড়া স্বাধীন হয়েছে, তারা কি স্বাধীন নয়?

৬) ১৯৪৭ সালে দ্বিজাতিতত্বের ভিত্তিতে বিভক্ত ভারত পাকিস্থানের স্বাধীনতার চুক্তিনামা গ্রেট বৃটেনে সংরক্ষিত। তাই বলে কি ভারত পাকিস্থান স্বাধীন নয়?

Leave a Reply