সরকারি চাকরিতে বয়সসীমা না থাকা, ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহারে তরুণদের মনে ক্ষোভ

প্রথমত- সরকারি চাকরির চিন্তা থাকলে কেউই বিকল্প কোন কিছু খুজতে যাবেনা । কারন বিকল্প কিছুতে সরকারি জবের মত সুযোগ সুবিধা নাই । 

দ্বিতীয়- বয়সসীমা না থাকলে -ক্যারিয়ার সচেতন ছেলেটিও অকর্মা হয়ে যাবে ‘ বয়স তো আছে । যে কোন সময় তো ঢুকা যাচ্ছেই ভেবে।

তৃতীয়ত- প্রচুর পরিমাণে পদের অপচয় হবে । বারবার নিয়োগ পরীক্ষা নিতে হবে । এতে দক্ষ জনবল তৈরী করতে অনেক সময় লাগবে ।যা রাষ্ট্রের জন্য ব্যয়বহুল এবং ক্ষতিকর
চতুর্থত- চাকরির বাজারে নতুন ছেলেদের জবে প্রবেশের সংখ্যা অর্ধেক কমে যাবে । 
পঞ্চমত- ৩৫/৪০ এর পরে গিয়ে যদি তার মনে হয় সরকারি জব দরকার তাহলে এতদিন যে শ্রম দিয়েছে সেটা বৃথা গেল । রাষ্ট্রের এবং নিজের কোন কাজে আসলো না । বরং রাষ্ট্র একজন বুড়া ভাম পাবে যেখানে ২৪ বছরের একজন এনার্জেটিক ছেলে পাওয়ার কথা (ততদিনে ১৪/১৫ বছরের অভিজ্ঞতা হয়ে যেত।

৬ষ্ঠত- রেমিটেন্সে ইফেক্ট পড়ার বড় সম্ভবনা । যেসকল ইন্টারপাশ ছেলেরা দেশের বাইরে গেছে তাদের কিছু অংশ দেশের কর্মসংস্থান ধরার ধান্ধায় চলে আসতেই পারে ! 

Leave a Reply