ইশ! কান্নাটা যদি আমাদের জন্য হতো……..

নির্বাচনী ডামাডোল চলছে। এই সেই মৌসুম, যে মৌসুমে একটি দেশের জনগণের কদর সবচেয়ে বাড়ে। দলের বিভিন্ন নেতা-কর্মীরা আসবে আর উচু-নিচু সমস্ত শ্রেণির মানুষকে বুকে জড়িয়ে বলবে ‘আমি তো তোমাদেরই লোক।’ তবে এ রকম দৃশ্য আমাদের দেশে খুবই পরিচিত। কিন্তু এবার নির্বাচন সামনে রেখে যে দৃশ্য আমি দেখলাম তা এর আগে কখনোই দেখিনি। এই মৌসুমে একটি নতুন জিনিস চোখে পড়লো। যা দেখে আমি সত্যিই তাজ্জব! আর সেটা হলো কান্না। ইশ! সে কি কান্না। তবে আমাদের দুর্ভাগ্য, এই কান্নাটা আমাদের জন্য।
কেউ কাঁদছে নিজের ক্ষমতার রাস্তা পায়নি বলে, আবার কেউ কাঁদছে দলের প্রধানকে জেলে রেখে নির্বাচন করতে হচ্ছে বলে। আরে ভাই, একজন নেত্রীকে কি এমনি এমনি জেলে রাখা সম্ভব? কিছু তো একটা হয়েছেই! জনগণ তো আর সব তথ্য জানে না। হ্যাঁ, যা বলছিলাম- কান্না। তবে আশ্চর্যের বিষয় কান্নাটা না। একজন মানুষ কাঁদতেই পারেন। তবে তাদের কান্নার কারণটা যদি আমাদের জন্য হতো!

দেশের বড় রাজনৈতিক দলের মহাসচিব সংবাদ সম্মেলনে কেঁদেছেন দলের সভাপতি জেলে আছেন সেই দুঃখে। আহারে! কান্নার কি বাহার! একেবারে ক্যামেরা, টিভির সামনে এসে লাইভ কান্না। আরে ভাই, যে কান্নায় দেশের এক পয়সা লাভ হবে না সে কান্না তোরা কেন করিস? দেশে প্রতিদিন গড়ে যে মানুষ মারা যাচ্ছে, যে মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়ছে, যে মানুষ গৃহহারা হচ্ছে, যে মানুষ তার সন্তানের মুখে খাবার তুলে দিতে ব্যর্থ হচ্ছে সেই মানুষগুলোর জন্য যদি তারা কাঁদতেন।

বছরের পর বছর জুড়ে যে মানুষগুলো গরাদের ভেতর জীবন পার করছে, বছরের পর বছর জুড়ে অভিভাবকের আশায় যে মানুষগুলো দিন পার করছে, যে মানুষগুলোর কাজের সন্ধান করতে যেয়ে হতাশ হয়ে জীবনকে বেলুনের মতো ফাটিয়ে ফেলছে সেই মানুষগুলোর জন্য যদি তারা এটু কাঁদতেন। তাহলেই হয়তো আমাদের এই দেশের চেহারা একটু হলেও বদলে যেত। তাই বলছি, ইশ! কান্নাটা যদি আমাদের জন্য হতো!


অজানা কন্ঠ

Leave a Reply