চীনের তৈরি কৃত্রিম চাঁদে সাঈদীকে দেখানোর প্রস্তাব নাকচ করেছে চীন সরকার

উচ্চাভিলাষী প্রকল্পে হাত দিয়েছে চীন। দিন-রাতের পার্থক্য মুছে ফেলার জন্য এবার তারা বানাতে যাচ্ছে ‘চাঁদ’। যার আলো হবে আসল চাঁদের আটগুণ বেশি। দেশটির বিজ্ঞানী ইউ চুনফেং সংবাদসংস্থা এবিসি-কে জানান, ২০২০ সালের মধ্যে তিনটি কৃত্রিম চাঁদ তৈরি করবে চীন। (সূত্র :বাংলাট্রিবিউন)

এদিকে চাঁদ বানানো হচ্ছে এমন খবর পেয়ে বিজ্ঞানী ইউচুনফেং এর সাথে ভিডিও কলে যোগাযোগ করেছে জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশ। দলটির আমীর সালাম দিয়ে ইউচুনফেংকে বলেন, ‘চন্দ্র বানাইতেছেন শুইনা খুশি হয়েছি জনাব। চন্দ্র বিরাট নেয়ামত। তাই একটাই অনুরোধ, আপনাদের চন্দ্রে অবশ্যই সাঈদী সাহেবকে দেখাইতে হবে।’

ইউ চুনফেং ভাঙা ভাঙা ইংলিশে জিজ্ঞেস করেন, ‘হু ইজ ছা-এ-ডি?’ এ কথা শুনে আমির সাহেব উচ্চস্বরে দুইবার ‘নাওজোবেল্লাহ’ বলে ওঠেন। তারপর সাঈদী সাহেবের মোজেজার বিস্তারিত বিবরণ দিয়ে জামাতের আমির বলেন, ‘যেই চন্দ্রে সাঈদী সাহেবকে দেখা যাইবে না, সেই চন্দ্র হারাম।’

এসময় ইউচুনফেং আশ্বাস দিয়ে বলেন, তিনি ব্যাপারটা চীন সরকারকে জানাবেন। তবে পরবর্তীতে চীন সরকার বিবৃতির মাধ্যমে জানিয়েছে, তারা কোনোভাবেই সাঈদীকে চাঁদে দেখাতে পারবেন না। জামাতের প্রস্তাব নাকচ করে দিয়ে চীন বলেছে, ‘তবে উপযুক্ত পারিশ্রমিক দিলে চীন জামাতকে সাঈদীসহ তাদের নিজস্ব চাঁদ বানিয়ে দিতে পারবে।’

বিশেষ থ্রিডি প্রজেক্টর বসানো এবং ব্যাটারিচালিত উক্ত চাঁদে যাকে ইচ্ছা তাকে দেখানো যাবে, এমনটাও জানানো হয়। অবশ্য এ ব্যাপারে জামাত এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। তবে জামাত চীনের তৈরিকৃত চাঁদকে ‘নাজায়েজ’ ঘোষণা করেছে।