রক্তের গ্রুপ অনুযায়ী চরিত্র

১০ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৪ সন্ধ্যা ৬:১৪আদিকাল থেকে মানুষের ব্যক্তিত্ব, প্রকৃতি, স্বভাব, চরিত্রও বৈশিষ্ট্য নিয়ে জ্যোতিষ শাস্ত্রে জাতকের জন্মলগ্ন, রাশি, গ্রহ-নক্ষত্র ও তিথী বিচার করে বা হস্তরেখার নিদর্শন থেকে অথবা নামের সংখ্যামান দ্বারা বর্ণনা করা হতো। কিন্তু বর্তমানে চিকিৎসা বিজ্ঞানের উচ্চ গবেষনা ও উৎকর্ষতায় এ সবের বিশদ ব্যাখ্যা স্পষ্টভাবে বেড়িয়ে আসছে।মানুষের জ্বিন পরীক্ষা করে জেনিটিক কোর্ট দেখে যেমন তার স্বভাব, চরিত্র বৈশিষ্ট্য নিখুঁতভাবে বলে দেয়া যাচ্ছে, তেমনি জাপানে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ গবেষণা অনুযায়ী পৃথিবীর সকল প্রকার নারী-পুরুষের মধ্যে রক্তের যে চারটি গ্রুপ পাওয়া গেছে, তার উপর বিশেষ গবেষণা করে প্রত্যেকটি গ্রুপের অধিকারী ব্যক্তিদের মধ্যে ব্যতিক্রম ও স্বতন্ত্র কিছু স্বকীয়তা, ব্যক্তিত্ব, বৈশিষ্ট্য, স্বভাব,চরিত্র সম্পর্কে জ্ঞানলাভের সন্ধানও পাওয়া যায়- যা কৌতূহলী ব্যক্তিদের জেনে উপকৃত হওয়ার স্বার্থে আমি নিম্নে প্রকাশ করলাম।(১) এ গ্রুপ : প্রশান্ত প্রকৃতির।বিশ্বের শতকরা ৩৪% ভাগ মানুষ ‘এ পজেটিভ’ এবং ১৬% ভাগ ব্যক্তিগণ ‘এ নেগেটিভ’ রক্তের অধিকারী। এরা সাধারণত আনুগত্যশীল, ঈমানদার, পরহেজগার, নিষ্ঠাবান, উদ্যমী ও পরোপকারী হওয়ার পাশাপাশি কিছুটা লাজুক ও স্পর্শকাতর ধরনের হয়ে থাকে। অন্যের মতাদর্শের প্রতি এরা সহনশীল হয়। নিয়ম নীতির প্রকৃত অনুসারী হয়। এদের ভেতরে ও বাইরে অনেকটা সমান স্বচ্ছতা থাকে। এদের কাছে আত্মীয়তার সম্পর্ক অনেক গুরুত্বপূর্ণ। স্বল্পালাপী ও লাজুক প্রকৃতির এই ব্যক্তিরা লোকের ভীড়ে বিচলিত হয়ে উঠে। অথচ টিমওয়ার্কে এরা দৃষ্টান্তমূলক কার্য্য সম্পাদন করে থাকে। এরা সাধারণত কবি, সাহিত্যিক, ইঞ্জিনিয়ার, সৃজনশীল, গবেষক, বৈজ্ঞানিক ও ভালো লেখক হতে পারে।(২) বি গ্র“প : সক্রিয় প্রকৃতির।বিশ্বের শতকরা ৯% ভাগ মানুষ ‘বি পজেটিভ’ এবং ২% ভাগ ‘বি নেগেটিভ’ রক্তের অধিকারী। এরা সাধারণত হাসি-খুশি এবং বাস্তব ও পজেটিভ চিন্তার অধিকারী হয়ে থাকে। কিন্তু অশৃংখল এবং বেপরোয়া হওয়ার প্রবণতাও এদের মধ্যে যথেষ্ট বিদ্যমান থাকে। এদের মধ্যে রসিকতা ও পাতলামি তুলনামূলক বেশি প্রকাশ পায়। এরা কলরব সৃষ্টি করে। নিজের উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য কিছুটা মতলববাজও হয়ে যায়। এদের মধ্যে অভিষ্ট স্থান লাভের যোগ্যতা থাকে। এরা কোন টিম মেম্বার হয়ে বিশেষ কার্যকরী ভূমিকা রাখে না, বরং তার আলাদা ও ব্যাতিক্রম দৃষ্টিভঙ্গি থাকে। এরা কেবল নিজের জন্যই কাজ করে। দৃঢ় ব্যক্তিত্বের অধিকারী এই ব্যক্তি মনগড়া চলে এবংনিজ মর্জি মাফিক কাজ করে। একাকিত্ব কর্মে এরা অধিক মনোনিবেশ করে ও গুরুত্ব দেয়। এরা সাধারণত গুপ্তচর, সচিব, ক্রীড়াবিদ এবং ভালো বাবুর্চি হতে পারে।(৩) এবি গ্রুপ : স্বাধীনচেতা প্রকৃতির।এই গ্রুপের লোক সংখ্যা কিছুটা কম, পৃথিবীর শতকরা ৪% ভাগ মানুষ ‘এবি পজেটিভ’ এবং মাত্র ১% ভাগ ‘এবি নেগেটিভ’ গ্র“পের রক্তের অধিকারী। এরা সাধারণত সৎচরিত্রবান, দয়ালু, নীরিহ ও স্বনামধন্য হওয়ার সাথে সাথে কিছুটা বেপরোয়া ও কল্পনা বিলাসী হয়ে থাকে। বিশ্লেষণমূখী প্রতিভার অধিকারী হয়। এদের মধ্যে শত্র“তা বা বিদ্বেষী মনোভাব থাকে। এরা মুডি হয় এবং কাকলাসের ন্যায় চেহারা/রং পরিবর্তন করে থাকে। এরা অন্যের দোষ-ত্রুটি ধরায় পটু। সমালোচনা করে ও দ্রুত নাক গলায়। কিছু লোকের সাথে খোলামেলা হয়ে যায়, আবার কতকের সাথে মিশে না, দূরত্ব রেখে চলে। এরা কোন বিষয়কে পূর্ব থেকে আন্দাজ করার যোগ্যতা রাখে। তবে এরা অতি দ্রুতই খারাপের পালায় পড়ে যায়। গ্রামের তুলনায় শহর এদের বেশি পছন্দনীয়। রহস্যময় বৈশিষ্ট্যপূর্ণ এই ব্যক্তিগণ মেধা খাঁটাতে অত্যন্ত আলস্য বোধ করে। এরা সাধারণত শিল্পী, আর্টিষ্ট/চিত্রকার, শিক্ষক ও ভালো উকীল হতে পারে।(৪) ও গ্রুপ : অগ্নি বা গরম প্রকৃতির।বিশ্বে শতকরা ৩৮% ভাগ মানুষ ‘ও পজেটিভ’ এবং শতকরা ৬% ভাগ লোক ‘ও নেগেটিভ’ রক্তের অধিকারী। এরা আত্মবিশ্বাসী, প্রত্যয়ী, স্পষ্টভাষী, সহজ-সরল ও দায়িত্বশীল ব্যক্তিত্বের অধিকারী হয়। দৃঢ় ও প্রখর ইচ্ছাশক্তি সম্পন্ন এই ব্যক্তিগন কিছুটা অহংকারী ও প্রতিশোধ পরায়ণ হয়ে থাকে। এরা কারো খবরদারী পছন্দ করে না। কোন কোন সময় এরা কিছুটা স্বার্থপরও হয়ে যায়। এরা গরম মাথায়ও শৃংখলিত থাকে। এরা ঝুঁকি নিতে পছন্দ করে। তবে এদের মধ্যে সন্দেহ প্রবণতা থেকে যায়। এরা সামাজিকতা ও দলবদ্ধতা পছন্দ করার সাথে সাথে দুঃখীদের পাশে দাঁড়ায়। এরা নিজের ভিতরের অবস্থাকে সহজে প্রকাশ করতে পারে। এদের ব্যক্তিত্ব সৌন্দর্য্যপূর্ণ ও পরিপাটিযুক্ত। এদের সদা গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বিজয়ী হয়ে থাকার ইচ্ছা। এরা বিশাল উচ্চবিলাসী জীবন গড়ে নিতে পারে। এরা সাধারণত ব্যাংকিং, ব্যবসা-বাণিজ্য ও রাজনীতিতে ভালো করে থাকে।

Leave a Reply