​বিশ্বে কি আমরাই একমাত্র মুসলিম দেশ?

আমরা জনসংখ্যা বহুল দেশ। নিজেদেরই থাকার জায়গা নাই। 

মুসলিম নামধারী দেশগুলো একত্রে সম্মিলিত ভাবে বার্মা আক্রমন করে রোহিঙ্গাদের ভুখন্ডটুকু উদ্ধার করুক। সেখানেই রোহিঙ্গাদের থাকার ব্যবস্থা করুক। আমরা প্রতিবেশি দেশ হিসেবে রোহিঙ্গাদের পর্যাপ্ত সহযোগীতা দিতে পারি। যেসব মুসলিম দেশ নিজেদের শক্তি দেখাতে ইয়েমেন, ইরাক, সিরিয়ায় নির্বিচারে বোমা মেরে মানুষ মারছে, তারা যদি সেসব বন্ধ করে রোহিঙ্গাদের ভুখন্ড উদ্ধার করার উদ্যেগ নেয় বাংলাদেশ অবশ্যই তাদের সহযোগীতা করতে পারে। তাছাড়া উদ্ধার হওয়া রোহিঙ্গা ভুখন্ডে অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, অবকাঠামো উন্নয়ন সহ সার্বিক কাজে বাংলাদেশ সহযোগীতা করতে পারে।

সবাই একাত্তরে বাঙ্গালীদের শরণার্থী হওয়ার কথা মনে করিয়ে দিচ্ছেন। একাত্তরে ভারত সরকার বাঙ্গালী শরণার্থীদের আশ্রয় দিয়েছিল, কারণ পুরো বিশ্ব জানতো যুদ্ধটা সাময়িক, বাংলাদেশ খুব শীগ্রই স্বাধীন হবেই। 

রোহিঙ্গাদের ক্ষেত্রে কি এমন কোন সম্ভাবনা আছে? উত্তর যদি হ্যা হয়, তাহলে কিভাবে? আর উত্তর যদি না হয়, তাহলে এতসব রোহিঙ্গাকে কোথায় রাখবেন? কতদিন ধরে রাখবেন?

যেখানে বাংলাদেশে জনসংখ্যা বাড়তে বাড়তে “দুটো সন্তান যথেষ্ট”- শ্লোগান পাল্টে “একটি সন্তান যথেষ্ট” শ্লোগান রাখার মতো অবস্থা তৈরী হয়েছে। সেখানে এত বিশাল সংখ্যক রোহিঙ্গাকে রাখার মতো আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত আমাদেরকেই কেন নিতে হবে? বিশ্বে কি আমরাই একমাত্র মুসলিম দেশ?চৌধুরী সাহেব
সংগ্রহিত:মামুন মনি লাকশের

Leave a Reply